Benefits of Opium Poppy - অহিফেন (আফিং)-এর উপকারিতা


অহিফেন (আফিং)
ভারতের প্রায় সর্বস্থানে এশিয়া ও উত্তর আফ্রিকার বিভিন্ন স্থানে আফিং চাষ হয়। বর্তমানে এর চাষ সরকারের অনুমতিসাপেক্ষে। মধ্যভারত, উত্তরপ্রদেশ, রাজপুতানা ও পাঞ্জাবের বিভিন্ন স্থানে অহিফেনের চাষ হয়।
অহিফেন বর্ষজীবী উদ্ভিদ। এই গাছ লম্বায় সাধারণত 3 – 4 ফুট পর্যন্ত হয়।  অক্টোবর - নভেম্বর মাসে এর বীজ বপন করা হয় ও জানুয়ারি থেকে মার্চের মধ্যে এর ফুল ও ফল হয়। ফল পাকলে তা থেকে বীজ সংগ্রহ করা হয়। এইগুলি হল পোস্তদানা।
 পোস্তদানা থেকে যাতে কেউ এই গাছ তৈরি করতে না পারে, সেজন্য খোসাসহ ফল সেদ্ধ করে তারপর বীজ অর্থাৎ পোস্তদানা বাজারে ছাড়া হয়।
 বীজের খোসাগুলি পৃথকভাবে বাজারে আসে। একে বলে পোস্ত - ঢেড়ি। এই পোস্ত - ঢেড়ি ভেজানো জল খেয়েও অনেকে নেশা করে থাকেন।
 অহিফেনের বীজ অর্থাৎ পোস্তদানা, ফল অর্থাৎ পোস্ত - ঢেড়ি, আঠা, ফুল ও ফুলের পাপড়ি ঔষধ রূপে ব্যবহৃত হয়।

রোগে ব্যবহার : -

1. স্নায়ু রোগে - অল্প দুধের সঙ্গে 25 মিলিগ্রাম আফিং মিশিয়ে খেলে উপকার পাবেন।
2.অন্ত্রজ বায়ুগত রোগে - সকালে অথবা বিকেলে কিছু খাবার পর ঈষদুষ্ণ বার্লির জলসহ 25 মিলিগ্রাম আফিং মিশিয়ে খেলে উপকার পাবেন।
3. পাথুরি রোগে - 25 মিলিগ্রাম আফিং মিছরির জলের সঙ্গে মিশিয়ে কিছুদিন খেলে উপকার পাবেন।
4.সর্দিগর্মিতে - 20 - 25 মিলিগ্রাম আফিং মিছরীর জলসহ খান, উপকার পাবেন।
5. দুর্বল স্বাস্থ্য - যারা দুর্বল স্বাস্থ্যের মানুষ, কাজ - কর্ম করতে পারেনা, তারা একটি নির্দিষ্ট মাত্রা ঠিক করে নিয়ে প্রত্যেহ দুধসহ আফিং খাবেন।
6. বমিতে - 15 – 20 ফোঁটা আদার রস গরম করে, ঠান্ডা হলে ছেঁকে তার সঙ্গে 15 - 20 মিলিগ্রাম আফিং মিশিয়ে খাবেন, বমি কমে যাবে।
7.হাত পা কামড়ানো - 10 - 15 ফোঁটা আদার রসের সঙ্গে 10 - 15 মিলিগ্রাম আফিং মিশিয়ে খেলে গা হাত পা কামড়ানো কমে যায়।
8. একশিরাতে - 20 - 25 ফোঁটা আদার সঙ্গে 15 - 20 মিলিগ্রাম আফিং মিশিয়ে প্রত্যেহ একবার অথবা দুবার খেলে উপকার পাবেন।
বি : দ্র : - জ্বর রোগের ক্ষেত্রে অর্থাৎ রোগীর জ্বর থাকলে আফিং - এর ব্যবহার করা সর্বদা নিষিদ্ধ।


Opium

Opium is cultivated in almost all parts of India, in various places in Asia and North Africa. Currently its cultivation is subject to the permission of the government. Opium is cultivated in various places of Mid India, Uttar Pradesh, Rajasthan and Punjab.
Opium perennial plant. This tree is usually 3 - 4 feet tall. The seeds are sown in October - November and flowers and fruits are harvested from January to March. Seeds are collected from the fruit when ripe. These are POSTO grains.
In order to prevent this plant from producing the POSTO grains, it should be cooked with fruits and then the seeds are released in the market.
The seeds are marketed individually. It's called POSTO Dheri. Many people get addicted to this POSTO Dheri after drinking soapy water.
The seeds of Opium are used as medicinal herbs, fruits, POSTO Dheri, gum, flowers and flower petals.
Use in disease: -
1. In neurological diseases - You will benefit from mixing 25 milligrams of Opium with a little milk.
2. In aerobic ailments - you will benefit from mixing 25 mg of Opium with barley water in the morning or after some meal in the afternoon.
3. In stone disease - you will benefit from mixing 25 milligrams of Opium candy with water for a few days.
4. In the cold - eat 20-25 mg Opium with candy water, you will benefit.
5. Poor health - People who are poor health, work - can not be done, they will adjust to a certain level and eat Opium with milk.
6. In vomiting - 15 - 20 drops ginger juice heated, if cool, mix 15-20 milligrams of Opium with it, and it will reduce vomiting.
7. Hand Pain - 10 - 15 drops of ginger juice mixed with 10 - 15 milligrams of Opium and reduce hand and foot cuts.
8. Ekshira - 20 - 25 drops of ginger mixed with 15 - 20 milligrams of Opium will benefit once or twice a day.
Note: - In case of fever, ie if the patient has a fever, it is always forbidden to use it.

Post a Comment

0 Comments